আমার সকল নিয়ে বসে আছি সর্বনাশের আশায় ---- এ কেমন সর্বনাশ!
যার জন্য আমার এই বসে থাকা ;
এ যে আমার নীরব প্রেম , এ আমার গোপন ভালবাসা |
তাই তো এই সর্বনাশকে জানাই আমন্ত্রণ
তুমি এসো প্রিয় , অন্ধকারে নয়, আলোয় এসে দেখা দাও
যে গভীর গোপন ভালবাসা তোমার অন্তরে লুকিয়ে আছে ,
তাকে গোপন কোরো না |
ব্যক্ত করো , ব্যক্ত করো , পূর্ণতা দাও
তোমার মনের গোপন ভালবাসা কে অভিনন্দন জানাও
মনের অতলের ভালোবাসাকে তিল তিল করে যে সঞ্চিত করে
সেই তো প্রকৃত ধনী
যন্ত্রনায় বিদ্ধ হওয়া দুটি মন যদি ভালবাসা চায়
তবে তোয়াক্কা কোরো না কারো
কারো ভ্রুকুটিতে ভয় পেও না
ধন্য হও, ধন্য হও আর ধন্য করো
ভেসে যাও এক অনাবিল ভালবাসারই স্রোতে ||

কেন তবে এমন ভোর আসে
পেঁয়াজ খোসার মতো পাতলা আবরনে ঢেকে?
বারবার আজানের পাশাপাশি ভেসে আসে কিছু কথা
কে যেন কবিতায় লিখেছিল, প্রিয়তমা তুমি ধোঁকায় পড়ো না
 আকাশে এখনো সুর্যটা ভাসেনি  লালচে আলোয় পৃথিবী শুনশান।

ঋনী করেছিলে তোমার পায়ের শব্দে
তোমার হাসির কাছেও জমেছিল কিছু ঋন
প্রিয়তমা অবশেষে তুমিও ধোঁকায় পড়েছ বিপন্ন যৌবনবোধে
বিষ্ময় শুধু ভোরেই স্পষ্ট হয়নি, টেনে নিয়ে গেছে আসন্ন গোধুলী তক
বুকের ভাঁজে জমানো ঘাম যাকে মধু বলা যায় তুমি অন্যকে দিয়েছ অবশেষে।

অনেক রাত্রি যাপনের পর বুঝেছি
আসলে শৈশবেই কাঁচা কুল চুরি করা যায়
বড় হওয়ার জ্বালা এই যে তোমাকে পরবাস দিলাম ঠিক
তুমি ধোঁকায় পড়ে আমাকে ধোঁকা দিতে চাইলে এটাই মর্মান্তিক
 শেষ দৃশ্যে নিজেকে সেই শৈশবে ফিরে পেলাম  আমাকেই ঋনী করে গেলে শেষে!

আমার বিষাদের মিছিলে
এনোনা সন্দেহের তারাবাতি |
এনোনা “আহারে” বাছাদের |
দিও তোমাদের অনুমতি
সহ নীরব হাততালি |

পারিনি হতে “আদর্শ ছেলে”...
তাতে দিও সম্মতি |
“স্বার্থপরতার রসে টই টুম্বুর
স্বামী”...সে ব্যাক্ষানে দিও
মাথা নাড়ানো সমর্থন |
“অবহেলার রাজা” সন্তান পালনে
এ মুর্ছায় দিও তোমাদের যৌথ ছাপ |

পিছনে তাকানোর বিলাসিতায়
আজ মন আমার জ্বরা জীর্ণ |
লোল চামড়ার খাঁজে যত দুঃক্ষ
তারা “আমায় দেখো” বলে আজ
বেরিয়েছে প্রতিশোধের আশায় |

নীলে নীলাকার আজ আকাশ আমার
বিষাদের নীলে | নীল কন্ঠ আমি
নিজের দোষে | কোনো অজুহাত
বা তীক্ষ্ণ করে তৈরী দোহাইকে
আজ আর সাঁটাবোনা আমার
জাব্দা খাতায় |

“ভোগী”, “অহংকারী” ইত্যাদি দোষকে
আজ এনো বরণ করে “কলঙ্ক”
ফুলের ডালায় | দর্শক “সুধী”
তোমাদের সাহায্যে এ মিছিল চলুক
হাট পেরিয়ে মহুয়া দীঘির পাড়ে |

নামিয়ো ব্যাথার পাল্কী পুরনো অশত্থের
কাছে| নীল শালে আবৃত আমার
শরীরে জ্বেলো নীল আগুন
যাক হয়ে ভস্ম ব্যর্থতার জ্বালা |

আশাবাদী আমি সূর্যোদয়ের সময়
সোনালী আলো মুখে কতো মোলায়েম
লাগে তা জানাবো
নীল সাগরে চান করার পর||

About this blog

hit counter

Sample text

ফেসবুকে আমাকে ফলো করুন

ভিজিটর কাউন্ট

Resources

মোট পোস্ট হল

জনপ্রিয় পোস্ট গুলি

আজকের তারিখ হচ্ছে

Powered by Blogger.

ইমেইল-এ যোগ করুন

Ads 468x60px

Social Icons

সমস্ত পোস্ট গুলি এখানে

Search

Loading...

Featured Posts